আশুলিয়া রিপোর্টার্স ক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

আগের সংবাদ

আশুলিয়ায় যুবলীগের ঈদ উপহার বিতরণ

পরের সংবাদ

আশুলিয়ায় বেতনের দাবিতে কারখানার সামনে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

নেছার উদ্দিন খান

প্রকাশিত :৮:৪৬ অপরাহ্ণ, ২৬/০৪/২২

সাভারের আশুলিয়ার গাজীরচট এলাকায় একটি পোশাক কারখানায় কয়েকমাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে কারখানাটির সামনে বসে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকা টেক্স নামের একটি পোশাক কারখানার সামনে এ আন্দোলন করছেন তারা।

শ্রমিকরা জানায়, ঢাকা টেক্স কারখানাটির শ্রমিকরা গত জানুয়ারি মাস থেকে শ্রমিকদের বিভিন্ন মাসের বেতন না দিয়ে কাজ করিয়ে নেয়। পরে বিষয়টি কারখানা কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা কয়েকজন শ্রমিককে বেতন দেয় আবার কয়েকজনকে বেতন দেয় না। গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসের বেতন বেশিরভাগ শ্রমিক পায়নি। অনেক শ্রমিককে বিকাশে বেতন দেওয়ার কথা বলে ঘুরি ঘুরিয়ে। যার বেতন ২০ হাজার টাকা তাকে বিকাশে ২ হাজার টাকা দিয়েছ। এমন করে কয়েকজনকে টাকা দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে পুলিশকে জানানো হলে পুলিশও কোনো ব্যবস্থা নেইনি। তাই আজ কারখানার সামনে অবস্থান করছি।

কারখানাটির রুবিনা নামের এক শ্রমিক বলেন, আমরা কাজ করেছি তিন মাসের বেতন পাবো। মালিক আমাদের টাকা দেয়নি। বেতন চাইতে গেলে কারখানার মালিক বেতন না দিয়ে হুমকি দেয়। প্রয়োজনে সে পুলিশকে টাকা দিবে কিন্তু শ্রমিকদের টাকা দেবে না। জানুয়ারি মাস থেকেই অনেক শ্রমিক বেতন নিয়ে ভোগছে।

মোঃ আমানুল্লাহ আমান নামের আরেক শ্রমিক বলেন, বেতন দেওয়ার কথা থাকলেও আমরা তিন মাস যাবৎ ধৈর্য সাথে কাজ করে যাচ্ছি। গত ১৩ তারখি থেকে মালিক পক্ষ গা ঢাকা দিয়েছে। তাদের কে আর পাওয়া যায়নি। এই ঈদের মৌসুমে রমজান মাসে অন্যর বাড়িতে ভাড়া থেকে কাজ করছি। বাসা ভাড়া দিতে পারছি না। দোকানের বাকি রয়ে গেছে টাকা দিতে পারছি না। বেতন না পেলে সামনের ঈদ কিভাবে আমরা উদযাপন করবো সেটাই বুঝতে পারছি না। এরজন্য আমাদের দাবি মালিক পক্ষ যেনো আমাদের বেতনটা দিয়ে দেয়ম

কারখানাটির চেয়ারম্যান মনসুর আহমেদ বলেন, আমি বিষয়টি নিয়ে অনেক কথা বলছি আর বলতে পারবো না। আপনি আমাদের এমডির সাথে কথা বলেন। আমরা শ্রমিকদের দাবি অযৌক্তিক।

কারখানাটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ আলম বলেন, যারা আন্দোলন করছে তারা সন্ত্রাসী। যারা মানুষকে ব্লাকমেইল করে চাঁদা দাবি করে। তাদের সাথে আমাদের কোনো সম্পর্কে নেই। আমাদের যারা শ্রমিক আছে তাদের বেকেয়া আমরা পরিশোধ করে দিয়েছি৷

বিষয়টি নিয়ে শ্রমিক নেতা সারোয়ার হোসেন বলেন, এই কাখানার মালিক হচ্ছে ফলস। শ্রমিকরা লিখিত ভাবে শিল্প পুলিশকে জানালেও কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। মালিক এদেরকে টাকা দেবে দেবে বলে আর দেয় না। এই কারখানার মালিক পক্ষ এই শিল্প অঞ্চলে শ্রমিক অসন্তোষ করার জন্য পায়তারা করছে। আমি প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।