আবারও কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে ১৪৪ ধারা

আগের সংবাদ

কুকুর আতঙ্কে রাত জেগে পাহারা, ৫ শিশুসহ কামড়ে আহত ১৭

পরের সংবাদ

আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১, গুলিবিদ্ধ ১৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত :৯:৩২ পূর্বাহ্ণ, ১০/০৩/২১

নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনয় আরো ১৩ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

নিহত ব্যক্তির নাম আলাউদ্দিন (৩২)। তিনি উপজেলার চর ফকিরা ইউনিয়নের চর কালি গ্রামের মমিনুল হকের ছেলে। স্থানীয় সূত্রগুলো দাবি করছে, নিহত আলাউদ্দিন মিজানুর রহমানের অনুসারী।

স্থানীয়রা জানান, কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হন। আহত হন অন্তত ২৫ জন। গুরুতর আহত ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে।

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের স্থগিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমানের (বাদল) সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, সংঘর্ষের সময় গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। সংঘর্ষের জন্য উভয়পক্ষই প্রতিপক্ষকে দায়ী করেছে।

প্রায় তিন সপ্তাহ আগে এ দু’পক্ষের সংঘর্ষে সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির গুলিতে নিহত হন।

কাদের মির্জা ও মিজানুর রহমানের অনুসারীদের মধ্যে মঙ্গলবার বিকেলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে রাতে আবার দুই পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গুলিতে গুরুতর আহত ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ঢাকা পাঠানো হচ্ছে। এ ছাড়া বাকিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

রাতের হামলায় হতাহতের বিষয়ে জানতে কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হকের ফোনে দিলেও তিনি ফোন ধরেননি।

এ ছাড়া বিবদমান দুই পক্ষের নেতাদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেও তাদের ফোনে পাওয়া যায়নি।