বৃষ্টিতে দুর্ভোগের কমতি নেই ঘরমুখো মানুষের

0
41
Print Friendly, PDF & Email

হাসান ভূঁইয়া, নিজস্ব প্রতিবেদক:

আর মাত্র কয়েক দিন পরেই ঈদুল আজহা, ভোর থেকে ঝুম ঝুম বৃষ্টি। থেমে থেমে বৃষ্টি চলছিল প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত। বৃষ্টিতে আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। গ্রীষ্মের তপ্ততায় এই বৃষ্টি জনজীবনে কিছুটা স্বস্তি আনলেও দুর্ভোগে পড়েছেন ঈদে ঘরমুখো মানুষেরা।

বৃহষ্পতিবার (08 আগষ্ট) সকাল থেকেই আশুলিয়ার বাইপাইলসহ বিভিন্ন বাস টার্মিনালে ঘরমুখো মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। বৃষ্টি উপেক্ষা করে সবাই শিল্পাঞ্চল ছাড়েছেন ঘরে ফেরার উদ্দেশ্যে। তবে বৃষ্টির কারণে আশুলিয়াতে চলাচলকারী গণপরিবহনে দুর্ভোগের মাত্রাও বেড়েছে কয়েকগুণ।

ঈদকে সামনে রেখে যাত্রীদের চাপ তুলনামূলকভাবে কম রয়েছে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন পরিবহন কর্তৃপক্ষ। তারপরও কাউন্টারগুলোতে যাত্রীদের ভিড় দেখা যায়। ঈদযাত্রা গত বছরের তুলনায় এবার স্বস্তিদায়ক হচ্ছে। মহাসড়কে খুব একটা যানজট নেই, রাস্তায় ভাঙাচোরাও কম। কাউন্টারগুলো থেকে সময়মতো ছাড়ছে বাস।

আজ বিকেল, আগামীকাল ও পরশু সারাদিন ঈদযাত্রীদের ভিড় সবচেয়ে বেশি থাকবে বলে মনে করছে পরিবহন কর্তৃপক্ষ।

আশুলিয়ায় বসবাসরত এক গার্মেন্টস শ্রমিক বলেন, সকাল সাড়ে ৭টার সময় ঘুম থেকে উঠেই দেখি প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছে। দেখেই মনটা খারাপ হয়ে গেলো। চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলাম, কীভাবে বাইপাইল আসবো। অটোরিকশা ভাড়া করে চলে আসলাম। যাহোক অনেক কষ্ট করে সবাইকে নিয়ে সঠিক আসতে পেরেছি। এটাই বড় স্বস্তি। এবার ভালোভাবে গ্রামে পৌঁছুতে পারলেই হবে।

আশুলিয়ার বাইপাইল ইকোনো বাস কাউন্টারের ম্যানেজার ইব্রাহিম খলিল জানান, বাস সময় মতোই ছেড়ে যাচ্ছে। অন্যান্যবারের তুলনায় এবার যাত্রীরা অনেক আরামেই বাড়িতে যাচ্ছেন। রাস্তার অবস্থাও ভালো। আর নির্ধারিত ভাড়াই নেওয়া হচ্ছে। ঘরমুখো যাত্রীরা খুশি।

অন্যদিকে ঘরমুখো মানুষের সকল প্রকার সহোযোগীতা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতও কমতি ছিলোনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here