ডিভোর্সের পর যা ভুলেও করবেন না

0
74
Print Friendly, PDF & Email

জীবন যাপন: যে কোনও সম্পর্কে ভালোবাসা যেমন থাকে তেমনই ঝগড়াও থাকে। তবে যেকোনো বিচ্ছেদই বেদনাদায়ক। আর ডিভোর্স বা বিবাহ বিচ্ছেদের মতো বিষয়টি তো কেবল মানসিক বিচ্ছেদ ঘটায় না, এর সঙ্গে সংসার ও সন্তানরা জড়িত থাকে। এই বিচ্ছেদের রেশ কাটতে কখনো মাস বা বছর লেগে যায়। 

তবে ডিভোর্স যদি হয়েই যায়, তাহলে কিছু বিষয় কিন্তু এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। ডিভোর্সের পর না করাই ভালো, এমন কিছু বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। 

প্রাক্তনকে সহজেই পাবেন, এমন আশা না করবেন না

ডিভোর্সের পর প্রত্যেকরই পথ কিন্তু আলাদা হয়ে যায়, আলাদা কাজ, জগৎ তৈরি হয়। তাই ডিভোর্সের পর প্রাক্তন স্বামী বা স্ত্রীকে আপনার প্রয়োজন বা চাহিদার সময় আগের মতো পেয়ে যাবেন, এমনটা না ভাবাই ভালো।

প্রাক্তনের সঙ্গে আটকে থাকা 
মানুষটি কোনো না কোনো কারণে ‘সাবেক’ হয়ে গেছে। তাই তার পেছনে আঠার মতো লেগে না থাকাই ভালো। সে তার জীবনে কী করছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় কী স্ট্যাটাস দিচ্ছে, সেগুলো কিন্তু এখন আর আপনার ভাবার বিষয় নয়।

কাউন্সেলিং বাদ দেবেন না 
ডিভোর্সের পর প্রত্যেকেই একটি কষ্টকর অবস্থার মধ্যে থাকে। এটি থেকে বেরিয়ে আসতে এবং নিজেকে আবারও মানসিকভাবে শক্তিশালী করতে কিন্তু কাউন্সেলিং খুব জরুরি। হতে পারে সেটি প্রফেশনাল কাউন্সিলরের মাধ্যমে বা খুব কাছের কোনো বুদ্ধিমান, বিচক্ষণ মানুষের দ্বারা। 

প্রাক্তন সম্পর্কে বাজে কথা লিখবেন না 
অনেকে ডিভোর্সের পর প্রাক্তন স্বামী বা স্ত্রীকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বাজে কথা লিখতে থাকে। এই কাজটি একদমই করবেন না। এতে আপনার ব্যক্তিত্বের ওপরই বাজে প্রভাব পড়ে। 

নিজেকে একা করে ফেলবেন না 
আসলে বিচ্ছেদের পর অনেকে এতটাই ভারাক্রান্ত হয়ে পড়ে যে নিজেকে সবার কাছ থেকে আলাদা করে ফেলে। এটি না করাই ভালো। এ সময় ইতিবাচক মানুষের সঙ্গে মিশুন। আর যারা আপনাকে দোষারোপ করবে বা সমালোচনা করবে তারা কখনোই আপনার ভালো বন্ধু নয়।

পরিকল্পনা ছাড়া সম্পর্কে জড়াবেন না 
ডিভোর্সের পর অনেকে এতটাই একাকিত্বে ভোগে যে খুব দ্রুত আরেকটি সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। অনেকে এটাকে সঠিক মনে করে, আবার অনেকে একটু ধীরে -সুস্থে এগোতে চায়। আসলে সম্পর্ক বিশেষজ্ঞরা বলেন, এই ক্ষেত্রে ধীরে এগোনোই ভালো। নতুন সম্পর্কে জড়াতে হলে একটু বুঝে-শুনে নিন। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here