সাভারে বাসে অগ্নিকান্ড ইলেকট্রিক সর্ট সার্কিট; নশকতা নয়

মহাসড়ক থেকে ভিতরে বাস অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে
Print Friendly, PDF & Email

এক্সপ্রেস প্রতিবেদক:

সাভারে আগুনে পুড়ে গেছে শ্যামলী পরিবহনের দুটি বাস।ইলেকট্রিক সর্ট সার্কিট কিংবা কয়েলের আগুন থেকে আগুনের সুত্রপাত হতে বলে জানিয়েছেন পাম্মেপর কর্মরত শ্রমিরা ।তবে এঘটনায় কয়েক গণমাধ্যম বিভ্রান্তি মূলক খবর প্রচার করছে বলে অভিযোগ পরিবহন মালিকের।
মঙ্গলবার দিনগত গভীর রাতে সাভারের বলিয়ারপুর এলাকায় শ্যামলী পরিবহনের মালিকানাধীন এন আর সিএনজি পাম্পে এ আগুনের ঘটনা ঘটে।
পাম্পের শ্রমিকরা জানায়, রাতে পাম্পে রাখা শ্যামলি পরিবহনের ঢাকা-মেট্রো ব-১৪১৪৭৫ বাসটিতে ঘুমিয়েছিল চালক ও হেলপার। রাত বারটার দিকে হঠাৎ বাসটিতে আগুনের ধোয়া দেখতে পায় শ্রমিকরা।আগুন দ্রুত পুরো বাসে ছড়িয়ে পরে।এসময় পাশে থাকা অরেকটি বাসেও আগুন লেগে যায়।পরে শ্রমিকদের নিজস্ব চেষ্ঠায় প্রায় ১ ঘন্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে। পরে সাভার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নির্বাপন করে।
ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, এন আর পাম্পে মহাসড়কে পাশে থেকে শুরু করে অনেক গুলো শ্যামলী পরিবহনের বাস দাড়িয়ে আছে। তবে মহাসড়কের পাশে প্রথমসারিতে কোন বাসের ক্ষয় ক্ষতি হয়নি। দুই তিন সারি পড়ে দুইটি বাস অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে।
পাম্পের পাশেই বাসগুলো মেরামত করার গ্রেজ রয়েছে।সেখানে ওয়েল্ডিংয়ের কাজ করা হয়।সে দিক থেকে ইলেকট্রিক সর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হতে পারে বলে ধারনা করছে ফায়ার সার্ভিস।
অপরদিকে কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে ধারনা করছে শ্রমিকরা।
এ বিষয়ে র্যা ব ৪ ও সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, র্দুবৃত্তরা আগুন দিলে মহাসড়কের প্রথম সারি কোন বাসে দিত। তা না করে কেন তারা ভিতরে সারিতে কোন বাসে আগুন দিবে। এছাড়া পরিবহন শ্রমকিদের সঙ্গে কথা বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে এই অগ্নিকান্ড র্দুবৃত্তদের ছোড়া নয় বরং ইলেকট্রিক সর্ট সার্কিট বা কয়েল থেকে হতে পারে। তবুও বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here